graphic design ki(what is graphic design bangla)-tech515.com

https://tech515.com/wp-content/uploads/2021/09/graphic-design-kiwhat-is-graphic-design-bangla-15.jpg

graphic design ki ? বা what is graphic design bangla ? এই প্রশ্নগুলি অনেকের মাঝে ঘুরে ফিরে।

কি দেশে কিংবা বিদেশে সবাই এই প্রশ্নটা নিয়ে উত্তর জানতে চায় এবং বলতে শোনা যায় graphic design ki ? বা what is graphic design bangla ?

আজকে এই ব্লগে এই বিষয়গুলি নিয়ে আলোচনা করব

গ্রাফিক্স ডিজাইন হচ্ছে শিল্পীর শিল্প যা কম্পিউটারের সফটওয়্যার দ্বারা প্রকাশ ঘটায়।

গ্রাহকের ধারণা অনুযায়ী গ্রাফিক্স ডিজাইনার সফটওয়্যার এর মাধ্যমে শিল্পকে প্রকাশ ঘটায়

জার্মান শব্দ থেকে গ্রাফিক্স শব্দের উৎপত্তি, কিছু ক্রিয়েটিভ ধারনা থাকলে একজন ভালো মানের গ্রাফিক্স ডিজাইনার হওয়া যায়।

এটি একটি ক্রিয়েটিভ কাজ সুতরাং এটি ভালোভাবে শিখতে হয়, কিছু ক্রিয়েটিভ সিক্রেট টিপস জানা থাকলে

এই পেশায় খুব ভালো করা যায়।

ফ্রিল্যান্সিং জগতে , মার্কেটপ্লেসগুলোতে আজকাল সবচেয়ে চাহিদা বহুল পেশা হচ্ছে graphic design,

কাজের আগ্রহ এবং ধৈর্য থাকলে একজন ভালো গ্রাফিক্স ডিজাইনার হওয়া যায়

graphic design কয়েকটি ভাগে বিভক্ত। যেমন ইমেজ গ্রাফিক্স, মৌশান গ্রাফিক্স।

ইমেজ গ্রাফিক্স

ইমেজ গ্রাফিক্স দুই ধরনের । রাস্টার ইমেজ, ভেক্টর ইমেজ

মৌশান গ্রাফিক্স

দুই ধরনের

এনিমেশন গ্রাফিক্স, ভিডিও গ্রাফিক্স

ইমেজ গ্রাফিক্স এবং মোশন গ্রাফিক্স মার্কেটপ্লেসে কি রকম চাহিদা ?

ইমেজ গ্রাফিক্স এবং মোশন গ্রাফিক্স দু টোরই মার্কেটপ্লেসে প্রচুর চাহিদা,

আমার জানামতে কেউ কেউ আছেন বাংলাদেশ থেকে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করছেন শুধু এই দুটো কাজ করেই

ফাইবার এবং আপওয়ার্কে মার্কেটপ্লেসে এমন অনেক ফ্রিল্যান্সার আছে যারা মাত্র

গ্রাফিক্স ডিজাইনে এই দুটো বিষয় কাজ করে একজন সফল ফ্রিল্যান্সার এ পরিণত হয়েছে।

তাদের আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি । তাদের কাজের কারণে বায়ার রা অধিকাংশ সময়,

তাদের সাথে সিডিউল রক্ষা করে চলে । এটি একমাত্র সম্ভব হয়েছে তাদের

ধৈর্যের কারনে, নতুন যারা গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে চান তাদের এই বিষয়টা মাথায় রাখতে হবে যে,

এ পেশায় আপনাকে অবশ্যই ধৈর্য রাখা খুব জরুরী, এবং হান্ডেট পার্সেন্ট মনোযোগ নিয়ে কাজ শিখতে হবে ।

বর্তমান কালে অনেকেই গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখা কালে ছিটকে পড়ে শুধু এই ধৈর্যের অভাবে।

অনেকে প্রশ্ন করেন যে, graphic design শিখে ki হবে ? সবাই তো ওয়েব ডেভলপমেন্ট,

ওয়েব ডিজাইন, ডিজিটাল মার্কেটিং শিখছে, কথাটি মোটেও যুক্তিযুক্ত নয় ।

কারণ দিনদিন বর্তমানে সবকিছু অনলাইন ভিত্তিক হয়ে যাচ্ছে এবং প্রত্যেকটা সেক্টর এখন অনলাইন

ভিত্তিক হয়ে যাচ্ছে, এবং সেখানে ডিজাইনিং এর কাজ

অপরিসীম গতিতে বাড়ছে, সেজন্য তারা ডিজাইনার হায়ার করছে ।

গ্রাফিক্স ডিজাইন এর গুরুত্বপূর্ণ টুলস গুলো

  • Photoshop, Ps
  • Adobe Illustrator, Ai
  • Adobe XD
  • Premier Pro
  • After Effect
  • Figma

Photoshop, Ps

ডিজাইনিং এর ক্ষেত্রে ফটোশপ পিএস দারুন একটি টুলস, এবং গ্রাফিক্স ডিজাইনের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ একটি টুলস

এই টুলস এর মাধ্যমে বিভিন্ন প্রডাক্ট কে হুবহু ডিজাইন করা যায়,

ডিজাইনের ক্ষেত্রে এটার চাহিদা ব্যাপক, খুব সহজে এডিটিং এর কাজ গুলি করা যায় ।

ফটোশপ পি এস এর মাধ্যমে যেকোনো ইমেজকে হুবহু তৈরি করা যায়।

Adobe Illustrator, Ai

এডোবি ইলাস্ট্রেটর হচ্ছে ভিক্টর ইমেজ তৈরি করার জন্য পারফেক্ট মাধ্যম

বিশেষ করে এর মাধ্যমে লোগো ডিজাইন, ভিজিটিং কার্ড ডিজাইন,

এবং অন্যান্য ডিজাইনের প্রাথমিক কাজ গুলি খুব সহজেই করা যায় ।

ডিজাইনের প্রাথমিক কাজ গুলি করার জন্য এই টুলস এর ব্যবহার সর্বাধিক ।

Adobe XD

অ্যাডোব এক্স ডি মাধ্যমে গ্রাফিক্সের কাজ গুলি খুব সহজেই তৈরি করা যায় ।

Premier Pro

ভিডিও এডিটিং এর ক্ষেত্রে প্রিমিয়ার প্রো এর তুলনা হয়না, এর মাধ্যমে,

এডিটিং এর কাজ গুলি খুব সহজে করা যায় ।

After Effect

এই টুলসটি মাধ্যমে 2D, 3D ভিডিও মেকিং অনায়াসে করা যায়, এবং এডিটিংয়ের কাজ খুব ভালোভাবে করা যায় ।

Figma

বেসিক লেভেলের কাজ শেখার পরে, অ্যাডভান্স লেভেলের কাজের জন্য ফিগমা খুবই গুরুত্বপূর্ণ,

এর মাধ্যমে এডভান্স লেভেলে কাজ গুলি করা হয়ে থাকে ।

বর্তমান যুগের গ্রাফিক্স ডিজাইন কি কি কাজে ব্যবহৃত হচ্ছে

কোম্পানির ব্র্যান্ড, লোগো তৈরি, প্রিন্টেড কভারেজ নিউজ পেপার, ম্যাগাজিন,

বিজ্ঞাপন ইমেজ, অ্যালবাম কভার, অ্যাডভার্টাইজমেন্ট ব্যানার, ইনভাইটেশন কার্ড,

ঔষধ এর প্যাকেট ডিজাইন, পানির বোতলের ডিজাইন, ভিজিটিং কার্ড,

কনজুমার প্রোডাক্ট এর ডিজাইন, টি-শার্ট ডিজাইন, বিভিন্ন গার্মেন্ট ডিজাইন,

অ্যানিমেশন বানানোর কাজে, মুভি মেকিং এর কাজে, বিভিন্ন ভিডিও মেকিং, এর কাজে,

কোন কোন মার্কেটপ্লেসে কাজ পাওয়া যায়
  • ফাইভার
  • আপওয়ার্ক
  • ফ্রিল্যান্সার ডটকম
  • এনভাটো
  • আপ ল্যাপস
  • 99 ডিজাইন
  • ডিজাইন ক্রাউড

ফাইভার

এটি একটি বড় মার্কেটপ্লেস, এখানে দেশ-বিদেশের

অনেক ফ্রিল্যান্সাররা কাজ করে থাকে,

এখানে যারা ওয়ার্ক করবে তারা সাধারণত গিগ পাবলিশ করে থাকে

এবং সেটা বায়ার দেখে এবং পছন্দ হলে কাজ দেয়

বায়ার ইচ্ছে মতো কাজ পেয়ে খুশি হলে ফাইভ স্টার রেটিং দিয়ে থাকে

এবং এই রেটিং কাজ পাওয়ার ক্ষেত্রে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে ।

আপওয়ার্ক

এটি ও একটি বড় মার্কেটপ্লেস, এখানেও প্রচুর ফ্রিল্যান্সারে কাজ করে থাকে,

এবং গ্রাফিক্স ডিজাইন সেক্টরে অনেক কাজ হয় এবং প্রচুর বায়াররা এটার মধ্যে সংশ্লিষ্ট আছে ।

ফ্রিল্যান্সার ডটকম

ডিজাইনের ক্ষেত্রে ফ্রিল্যান্সার ডটকম এর জুড়ি নেই, বিশেষ করে লোগো সাবমিট ক্ষেত্রে,

দেশ বিদেশের অনেক ডিজাইনাররা এখানে তাদের ডিজাইন সাবমিট করে থাকে ।

এই সাইটে প্রচুর বায়ারের কাজ পাওয়া যায় ।

এনভাটো

গ্রাফিক্স ডিজাইনারদের জন্য এই সাইটটি একটি হাইপ্রোফাইল সাইট,

এ সাইটটিতে লোগো, থিম, আপলোড করে ভালো ইনকাম জেনারেট করা যায়,

তাছাড়া অন্যান্য ডিজাইন ও আপলোড করা যায় ।

এখানে ডিজাইনাররা হাই রেটে ডিজাইনগুলি সেল করতে পারে ।

আপ ল্যাপস

বেসিক ডিজাইনারদের জন্য এই সাইটটি ভালো । প্রাথমিকভাবে তারা

এ সাইটটিতে তাদের ডিজাইনগুলি সাবমিট করতে পারে এবং আর্নিং করতে পারে ।

99 ডিজাইন

এই সাইট টি ও একটি ভালো ডিজাইন সাবমিট করার সাইট, দেশ বিদেশের অনেক ডিজাইনাররা এখানে কাজ করছে।

ডিজাইন ক্রাউড

ডিজাইন ক্রাউড সাইটটি ভালো সার্ভিস দিচ্ছে এবং দেশ বিদেশের অনেক ফ্রিল্যান্সাররা এখানে কাজ করছে ।

এছাড়াও টি-শার্ট ডিজাইনিং এর ক্ষেত্রে দুটো সাইট হচ্ছে, টি স্প্রিং, এবং রেড বাবল ,

এই দুটো সাইটে টি শার্টের ডিজাইন সাবমিট করা যায় ।

গ্রাফিক্স ডিজাইন কিভাবে শিখবেন

সাধারণত দুইটি পদ্ধতিতে আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখতে পারেন,

  • ফ্রী পদ্ধতি
  • পেইড পদ্ধতি

ফ্রী পদ্ধতি

ফ্রী পদ্ধতিতে আপনি মূলত ইউটিউব টিউটোরিয়াল গুলো দেখে শিখতে পারেন, ইউটিউবে,

এমন অনেক টিউটোরিয়াল পাবেন যারা আপনাকে বেসিক গ্রাফিক্স ডিজাইনের এ টু জেড শিখাবে,

তাছাড়া বিভিন্ন ওয়েবসাইট বা গুগোল এ সার্চ দিলে এমন অনেক ট্রেনিং পাবেন যারা আপনাকে ফ্রী কোর্স করাবে ।

পেইড পদ্ধতি

আপনি এরকম অনেক প্রতিষ্ঠান পাবেন যেখানে গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্স করতে পারবেন,

এবং তারা একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত কোর্সটা করাবে এবং আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইন এর উপরে খুব ভালোভাবে কোর্সগুলো করতে পারবেন

তারা কোর্সের শেষে সার্টিফিকেট প্রদান করে থাকে,

একটি ভাল মানের পেড কোর্স করতে হলে আপনাকে মিনিমাম ২০ থেকে ৩০ হাজার টাকা খরচ করতে হতে পারে ।

গ্রাফিক্স ডিজাইন এ আর্নিং করার আরেকটি মাধ্যম

গ্রাফিক্স ডিজাইনে শেখা শেষে, আপনি একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করে সেখানে আপনার ডিজাইন সম্পর্কিত,

সমস্ত টিউটোরিয়াল তৈরি করুন, এবং আপলোড করুন ,দেখবেন অল্প সময়ের মধ্যেই আপনার চ্যানেল মনিটাইজেশন হয়ে যাবে,

এর মাধ্যমে আপনার একটি আর্নিং জেনারেট হবে , তাছাড়া আপনি ফেসবুকে গ্রুপ তৈরি করে

লাইভ ক্লাস করিয়ে গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখাতে পারেন, এবং তা বাবদ আপনি পেমেন্ট নিতে পারেন ।

পরিশেষে কিছু কথা বলতে হয় যে, গ্রাফিক্স ডিজাইন শেখার মাধ্যমে –

আপনি আপনার ভবিষ্যৎ টা উজ্জ্বল করতে পারেন,

এটা এমন একটা সেক্টর যে সেক্টরে কাজ শিখে অনেক যুবকরা

বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে সার্ভিস দিয়ে যাচ্ছে এবং লাখ লাখ টাকা ইনকাম করছে

আমার এই ব্লগে আমি চেষ্টা করেছি গ্রাফিক্স ডিজাইন সম্বন্ধে সমস্ত

ইনফরমেশন গুলো আপনাদের মাঝে দেওয়ার,

আশা করি graphic design ki (what is graphic design bangla) এর উত্তরটা আমি ঠিক ভাবে দিতে পেরেছি । TECH515 EARNING TIPS

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *