ফেসবুক মার্কেটিং/What is Facebook Marketing

https://tech515.com/wp-content/uploads/2021/10/ফেসবুক-মার্কেটিংWhat-is-Facebook-Marketing-3-1.jpg

আমাদের আজকের ব্লগে ফেসবুক মার্কেটিং নিয়ে আলোচনা করব

আমাদের মাঝে অনেকেরই প্রশ্ন ফেসবুক মার্কেটিং কি?, এবং কিভাবে ফেসবুক মার্কেটিং থেকে আয় করা যায়?

ফেসবুক মার্কেটিং হল চিঠিপত্রের একটি পদ্ধতি যা ফেসবুক ক্লায়েন্টদের ব্যবসা

আইটেম এবং প্রশাসন সম্পর্কে শিক্ষিত করে। ফেসবুক মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে,

ক্রমবর্ধমান সংখ্যক ব্যক্তিকে আইটেম সম্পর্কে চিন্তা করতে সহায়তা করে এবং আরও আইটেম

বিক্রি করতে সহায়তা করে।

Facebook Marketing নিয়ে আলোচনা করার পূর্বে এর ইতিহাস সম্পর্কে একটু আলোচনা করা যাক

Mark Zuckerberg, Harvard University পড়ার সময় তার সহকর্মী এবং software

Engineering এর অধ্যাপক এডুয়ার্ডো সাভেরিন, ডাস্টিন মোসকোভিটজ এবং

ক্রিস হিউজের যৌথ প্রচেষ্টায় ফেসবুক তৈরি করেছিলেন। সাইটটির তালিকাভুক্তি

প্রথমে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল, তারপরও পরে

বোস্টন, আইভি লীগ এবং স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটির বিভিন্ন স্কুলে সম্প্রসারিত

হয়। সব পরে এটি সব কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং ১৩ বছর বা

তার বেশি প্রতিষ্ঠিতদের জন্য উপলব্ধ। এই সাইটটি বর্তমানে বিশ্বজুড়ে ২৫০

মিলিয়ন ডায়নামিক ক্লায়েন্ট দ্বারা ব্যবহৃত হয়।

2০০8 সালের May মাসে, Facebook প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তা এবং Mark Zuckerberg

Friend, Adam de Angela পদত্যাগ করেন। জানা গেছে যে তাদের

মধ্যে একটি বিতর্ক ছিল এবং তিনি প্রতিষ্ঠানের অসম্পূর্ণ মালিকানায় আগ্রহ

হারিয়ে ফেলেছিলেন। প্রধান তত্ত্বাবধানকারী কর্মীদের মধ্যে রয়েছে ক্রিস কক্স (ভিপি),

শেরিল স্যান্ডবার্গের প্রধান কার্যনির্বাহী কর্মকর্তা, মার্ক জাকারবার্গ পরিচালক এবং প্রেসিডেন্ট ।

ফেসবুক মার্কেটিং থেকে কিভাবে আয় করা যায়

ফেসবুক মার্কেটিং দুই প্রকারের হয় ।

(১) ফ্রি মার্কেটিং ( ২) পেইড মার্কেটিং

(১) ফ্রি মার্কেটিং

সাধারণত Free মেথডে Facebook যে মার্কেটিং করা হয় তাকে Facebook Free Marketing বলা হয়

ফ্রী মেথডে সাধারণত একটি পেইজ ক্রিয়েট করে সেখানে পণ্যের ছবি আপলোড করে,

এবং বিভিন্ন গ্রুপে পোস্ট এবং শেয়ারের মাধ্যমে মার্কেটিং করতে হয়,

এই পদ্ধতিটির মাধ্যমে মোটামুটি ভালো সাড়া পাওয়া যায় এবং ভালো আয় করা যায়,

যদিও পদ্ধতিটি একটি দীর্ঘমেয়াদী চেষ্টা করতে হয়,

এই পদ্ধতিতে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করতে হয় এবং

এর মাধ্যমে পেজে লাইক এবং ফলোয়ার বাড়ানো যায়,

পেজে ফলোয়ার এবং লাইকের সংখ্যা বেশি হলে অটোমেটিকভাবে ইনকামের সংখ্যা বেড়ে যায়

( ২) পেইড মার্কেটিং

এই পদ্ধতির মাধ্যমে সাধারণত টাকা পেইড করে বিজ্ঞাপন চালিয়ে টার্গেট অডিয়েন্স এর কাছে

ব্যবসায়িক পণ্য বিক্রি করাকে বুঝায়, এ পদ্ধতিটি একটি সফল পদ্ধতি, এর মাধ্যমে

ভালো ইনকাম জেনারেট করা যায়, এবং টার্গেট অনুযায়ী পণ্য বিক্রি করা যায়,

তবে এতে যদি ভালো ফলাফল পেতে হয় তাহলে অবশ্যই গ্রাহককে তার

নির্দিষ্ট ভালো মানের পণ্য দিতে হবে , এবং যে ধরনের পণ্য সেই ধরনের অনুযায়ী

অডিয়েন্স সেট করতে হয় । ফেসবুকে সেটাকে বুষ্টিং বলা হয়,

আপনি যখন আপনার পেজে পোস্ট করবেন, তখন পেজের পোস্ট এর নীচে বুষ্ট লেখা থাকে

সেখান থেকে বুষ্ট অপশন এ যেয়ে আপনি আপনার অডিয়েন্স ঠিক করতে পারবেন,

আপনি কত ডলার বুস্ট করতে চান এবং কোন কোন এলাকা অডিয়েন্স গুলি টার্গেট করতে চান

সেটাও ঠিক করতে পারবেন। আপনার খরচ এর উপর নির্ভর করবে আপনার আয়,

আপনি বুষ্টিং এর যত টাকা খরচ করবেন তার থেকে বেশি লাভবান হতে পারবেন ।

ফেসবুকে বুষ্টিং হচ্ছে একটি দ্রুততম আয় করার মাধ্যম ।

অডিয়েন্স বাছাই যথাযথ করতে পারলে এবং বয়স ভিত্তিক অডিয়েন্স

বাছাই করতে পারলে এই টার্গেটে সফল হওয়া যায় ।

তবে এতে অবশ্যই আপনাকে অডিয়েন্সের মেসেজ গুলোর যথাযথ

গুরুত্ব সহকারে অ্যানসার দিতে হবে।

ফেসবুক মার্কেটিং এর অন্যান্য পদ্ধতি

ফেসবুকে গ্রুপ

আপনি একটি ফেসবুকে গ্রুপ খুলে তার মাধ্যমে আর্নিং করতে পারবেন,

এটি আর্নিং এর একটি কার্যকরী উপায় এবং অনেক সদস্য গ্রুপে যোগ হওয়ার মাধ্যমে

এবং সবার পণ্য একই গ্রুপে পোস্ট এর মাধ্যমে ভালো ভাবে প্রচার সুযোগ হয়,

একজন আরেকজনের প্রয়োজন গ্রুপের মাধ্যমে পুরো করা যায়,

এবং ভালো সেল জেনারেট করা যায় ।

ভিডিও মেকিং

বর্তমানে ফেসবুকে কার্যকরী উপায় হচ্ছে ভিডিও অ্যাড মেকিং,

ভিডিও অ্যাড এর মাধ্যমে বুষ্টিং করলে বেশি অডিয়েন্স রিচ করে,

এবং অবশ্যই গুণগত মান ঠিক রেখে সুন্দর ভিডিও তৈরি করতে পারলে

অডিয়েন্সের অভাব হয় না । এবং দিনে দিনে সেল বাড়তে থাকে ।

মার্কেটপ্লেস

মার্কেটপ্লেসে পন্যের প্রচার করে ফেসবুকে ইনকাম করার একটি অন্যতম মাধ্যম

মার্কেটপ্লেসে আপনার পণ্যগুলি দেখে গ্রাহকরা অর্ডার করে থাকে

এবং আপনার পণ্য বিক্রি হওয়ার জন্য ফেসবুকে

এটি একটি অন্যতম কার্যকরী উপায় ।

ফেসবুক লাইভ

বর্তমানে বিভিন্ন গ্রুপ এবং পেজ থেকে ফেসবুকে লাইভ ভিডিও করার মাধ্যমে

ভালো আর্নিং জেনারেট করা যায় ।

এতে অডিয়েন্সের শারা বেশি পাওয়া যায় এবং প্রোডাক্ট এর বিক্রয় প্রচুর হয়ে থাকে,

আমার জানা মতে এরকম অনেক গ্রুপ এবং পেইজ আছে যারা লাইভ করার

মাধ্যমে প্রচুর ইনকাম জেনারেট করছে ।

অডিয়েন্সকে লাইভ এর মাধ্যমে তাদের পণ্য খুব সহজেই দেখাতে পারছে,

এবং এতে করে লাইভ চলাকালে মেসেজের মাধ্যমে পণ্য অর্ডার হয়ে যাচ্ছে,

বিভিন্ন big business organizations তাদের Sales of products জন্য লাইভ করার

স্টাফ নিয়োগ দিচ্ছে ।

ফেসবুক বিজনেস সুট

ফেসবুকের বিজনেস সুট হচ্ছে একটি মাধ্যম যার মাধ্যমে পোস্ট বুষ্ট

করার ক্ষেত্রে সহজ উপায় তৈরি হয়, এবং অডিয়েন্স কতজন

আপনার পোষ্ট রিচ করলো তা সহজে জানা যায়

এডস ম্যানেজার

বর্তমানে ফেসবুকে পোস্ট বুস্ট করার ক্ষেত্রে এডস ম্যানেজার বেশি ব্যবহার হয়ে থাকে,

এতে অডিয়েন্স গুলো ভালোভাবে রিচ করা যায়, যাদের ই-কমার্স ওয়েবসাইট আছে তারা এর মাধ্যমে

ওয়েবসাইটের সাথে লিংক করে অডিয়েন্সের রেকর্ড ট্র্যাক করতে পারে,

এতে তারা খুবই লাভবান হয়ে থাকে ।

ফেসবুক আইডি ফ্রেন্ড

যার যত বেশি ফেসবুক ফ্রেন্ড রয়েছে তার তত ইনকাম জেনারেট করার সুবিধা রয়েছে,

আপনার যদি দেশ-বিদেশে প্রচুর ফেসবুকে ফ্রেন্ড থাকে এবং

যারা আপনার সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করে চলে

তাদের কাছে আপনি আপনার পণ্যের প্রচার করে সহজে

ইনকাম জেনারেট করতে পারেন।

ফেসবুক পেজ লাইক, ফলোয়ার বাড়ানোর মাধ্যমে

যে পেজের লাইক সংখ্যা এবং ফলোয়ার সংখ্যা বেশি হয়

সেই পেজটা অডিয়েন্সের কাছে গুরুত্ব সহকারে বিবেচিত হয়,

এবং audiences’ কাছে গুরুত্ব বেড়ে গেলে অবশ্যই বিক্রিও বেড়ে যায় ।

ফেসবুক মার্কেটিং শেখার উপায়

সাধারণত আপনি দুটি উপায়ে ফেসবুক মার্কেটিং শিখতে পারেন,

(১) ইউটিউব টিউটোরিয়াল থেকে ( ২) কোন প্রতিষ্ঠান থেকে কোর্স করে ।

(১) ইউটিউব টিউটোরিয়াল থেকে

ইউটিউব টিউটোরিয়াল গুলো দেখে আপনি বেসিক নলেজ গুলি নিতে পারেন,

অনেক ইউটিউবাররা ফেসবুক মার্কেটিং এর উপরে টিউটোরিয়াল দিচ্ছে,

সেইসব টিউট্রিয়াল থেকে আপনারা বেসিক নলেজ গুলি সহজে নিতে পারেন ।

( ২) কোন প্রতিষ্ঠান থেকে কোর্স করে

আমাদের দেশে এরকম অনেক প্রতিষ্ঠান আছে যারা ফেসবুক মার্কেটিং

এর উপর কোর্স করায় সেখানে আপনি একটি কোর্স করে নিতে পারেন ।

সেক্ষেত্রে আপনাকে এ, টু ,জেড, যেমন বেসিক নলেজ থেকে শুরু করে

এডভান্স লেভেল পর্যন্ত সেখানে শেখাবে, সেইরকম প্রতিষ্ঠান দেখে কোর্স করবেন

অবশ্যই কোন নামকরা ভাল প্রতিষ্ঠান থেকে শিখবেন ।

পরিশেষে একটি কথাই বলতে হয়, ফেসবুক মার্কেটিং শিখে

অনেকেই তার ইনকামিং সোর্স ডেভলপ করতে পেরেছে এবং

চাকরির পেছনে না দৌড়িয়ে এর মাধ্যমে ইনকাম করে তার জীবন পরিবর্তন করতে পেরেছে ।

ফেসবুক মার্কেটিং আর্টিকেল টি ভালো লাগলে আপনারা অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন । TECH

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *