উপদেশ মূলক বাণী এবং বিশ্বাস নিয়ে উক্তি tech515.com

https://tech515.com/wp-content/uploads/2021/09/উপদেশ-মূলক-বাণী-এবং-বিশ্বাস-নিয়ে-উক্তি-2.jpg

Table of Contents

আমাদের এই ব্লগে বিভিন্ন উপদেশমূলক বাণী এবং বিশ্বাস নিয়ে উক্তি গুলো আলোচনা করা হলো tech515.com

  • উপদেশ মূলক বাণী
  • ইসলামিক উপদেশ মূলক বাণী
  • বিশ্বাস নিয়ে উক্তি
  • মনীষীদের উক্তি
  • শিক্ষামূলক উক্তি
  • মোটিভেশনাল উক্তি

উপদেশ মূলক বাণী

জীবনের প্রতিটি ধাপের যত্ন নিন কারণ অনেক মানুষ শুধু একটি ভুল ধরার জন্য অপেক্ষা করছে। এই উপদেশ মূলক বাণী গুলি

আপনার কাজে লাগবে ।tech515.com

শুধু মনে রাখবেন যে এমনকি একটি গাছ প্রতি বছর তার সবুজ পাতা হারায়

কিন্তু কিছুক্ষণ অপেক্ষা করার পর তারা তাদের সবুজ পাতা ফিরে পায়।

মনে রাখবেন যুদ্ধ হয়তো একসময় শেষ হয়ে যাবে, কিন্তু হৃদয়ে রক্তক্ষরণের মতো কথাগুলো কখনো ভোলা যাবে না।

একাকী সময় কাটান এই ভেবে যে যে মানুষটি আপনার জন্য কিছু সময় চায় তাকে কখনই ব্যস্ত দেখবে না,

যে মানুষটি কেবল আপনার সাথে ব্যস্ত থাকতে চায়, তাকে কখনো অবহেলা করবেন না, শরীর এবং সম্পত্তির জন্য কখনো গর্ব করবেন না কারণ অসুস্থতা এবং দারিদ্র্য কাউকে বলে কয়ে আসে না।

হাজার হাজার নতুনের ভিড়ে কেউ পুরনোকে খুঁজতে যায়।

এই সেই সময় যখন মানুষ চুপ থাকে যখন তাদের কিছু বলার থাকে না এবং যখন তাদের কিছু বলার থাকে, কিন্তু তিনি বলতে পারেন না যে ভালোবাসা শুধু শরীর এবং রূপের আকর্ষণ নয়।

ভালোবাসা মানে সম্মান, শ্রদ্ধা, বিশ্বাস এবং বিশ্বাস। এটি একটি মহান গুণ, কিন্তু একই ব্যক্তিকে বারবার ক্ষমা করা বোকামি, যদি না আপনার খুব প্রয়োজন হয়।

কেউ তা মনে রাখে না। এটা বাস্তব. আপনি কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন না।

আপনি যদি আপনার আবেগ নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন, তাহলে আপনি জীবনে সুখী হবেন।

এই বাণী গুলি উপদেশ মূলক , আপনার জীবনে কোন দিন দোষারোপ করবেন না। একটি ভাল দিন আপনাকে খুশি করতে পারে কিন্তু একটি খারাপ দিন আপনাকে অভিজ্ঞতা দেবে।

শ্বাস আপনার নিজের শরীরের প্রতিও অবিশ্বস্ত হবে। এটা চলে যাবে। এটি এই শরীরকে আদর করবে। সারা শরীর তোমার জন্য দোয়া করবে।

আপনিই একমাত্র. যখন আমরা আলোতে যাই, আমরা নিজেদেরকে নিভিয়ে ফেলি যেমন একটি মোমবাতি সর্বোচ্চ আলো দিয়ে নিজেকে নিভিয়ে দেয়।

একজন মহিলার বয়স এবং একজন পুরুষের আয় কখনই জিজ্ঞাসা করা উচিত নয়। কেউ মনে করে না যে ভালো মানুষ কখনও নিজের জন্য বাঁচে না এবং কখনও নিজের জন্য কাজ করে না।

যদি আপনি দেখাতে পারেন যে আপনি তাকে ভুলে গেছেন, তাহলে ভাল হওয়ার প্রথম ধাপ হল ভুলে যাওয়া শেখা।

আপনি কি কখনো ভেবেছেন কিভাবে বাসর রাতে ঝলমলে রাত কাটাবেন, কিন্তু আপনি কি কখনো ভেবেছেন কিভাবে কবরের অন্ধকারে প্রথম রাত কাটাবেন ? এই উপদেশ মূলক বাণী গুলি কি আমাদের উপকারে আসবে ?

ইসলামিক উপদেশ মূলক বাণী

রাসূল (স) ইরশাদ করেন.

এমন দুটি বাক্য আছে যা আল্লাহর কাছে খুবই প্রিয় এবং ওজনে খুব ভারি

একটি হচ্ছে ”সুবহানাল্লাহ হি বিহামদিহি” আরেকটি হচ্ছে ”সুবহানাল্লাহিল আযীম”।

“মানুষ মরন থেকে বাঁচতে চেষ্টা করে,

জাহান্নাম থেকে নয় মানুষ চেষ্টা করলে জাহান্নাম থেকে বাঁচতে পারে কিন্তু মৃত্যু থেকে নয়”, -আল হাদিস.

‘দিনের আলোতে এমন কাজ করো না

যাতে রাতের ঘুম নষ্ট হয় আর রাতের আধারে এমন কাজ করো না

‘ যাতে দিনের বেলায় মুখ লুকিয়ে রাখতে হয়” -হযরত ওমর (রা)।

“তুমি পানির মত হতে চেষ্টা করো

যে কিনা নিজের পথ নিজে তৈরি করে পাথরের মতো হইও না যে কিনা অন্যের পথের প্রতিবন্ধকতা তৈরি করে”।

”লোহা গরম হলে নরম হয়ে যায় সুতরাং রেগে না গিয়ে শান্ত থাকুন, ধৈর্য্য একটি কঠিন গাছের মত কিন্তু এর ফল খুবই মিষ্টি ”- সংগ্রহীত।

“প্রশংসা করুন প্রশংসিত হবেন”, “সম্মান করুন সম্মানিত হবেন”।

“জীবনে সুখী হওয়ার মন্ত্র একটাই চাহিদা কমাও তাহলে সুখী হতে পারবে”- সংগ্রহীত।

“তিনটি বস্তু মানুষকে ধ্বংস করে দেয়

লোভ হিংসা অহংকার” সংগ্রহীত।

“তিনটি অভ্যাস মানুষের জন্য কল্যাণ ডেকে আনে
আল্লাহর ইচ্ছার উপর সন্তুষ্ট থাকা
আল্লাহর কাছে দুহাত তুলে দোয়া করা
বিপদে ধৈর্যধারণ করা” সংগ্রহীত।

“আল্লাহর নিকট সবচেয়ে প্রিয় দুফোটা চোখের অশ্রু,

আমরা যদি দু’রাকাত নামাজ পড়ে দুফোটা চোখের জল ফেলে দোয়া করি,

তাহলে সেই দোয়া আল্লাহতালা অবশ্যই কবুল করে,

এবং দোয়া কারি কে আল্লাহ তায়ালা মাফ করে দেন “-এই উপদেশ মূলক বাণী গুলো সংগ্রহীত।

বছরে যেমন দুই ঈদের দিন আল্লাহর কাছে মর্যাদাপূর্ণ ঠিক তেমনি সপ্তাহে একটি দিন মর্যাদাপূর্ণ সেটি হচ্ছে জুম্মার দিন।

জুমার দিনের ফজিলত রয়েছে, জুমার দিনে কোন ঈমানদার যদি মৃত্যুবরণ করে তাহলে সে বিনা হিসেবে জান্নাতে যাবে।

জুমার দিনে সুন্দরভাবে পরিপাটি হয়ে মেসওয়াক করে গোসল করে সুন্দর পোশাক পড়ে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন হয়ে সুগন্ধি লাগিয়ে

আগে আগে মসজিদে যাওয়া উত্তম, জুমার দিনে নির্দিষ্ট কিছু মুহূর্ত আছে যে সময় দোয়া করলে আল্লাহতায়ালা অবশ্যই কবুল করেন।

আমরা যেভাবে রমজান মাসের রোজা রাখি কিন্তু সেভাবে সম্পদ অনুযায়ী যাকাত দেওয়া হয়না,

যদি সকলে সামর্থ্যবান ঠিকভাবে যাকাত দিত তাহলে আমাদের দেশের দারিদ্রতা থাকত না।

রোজা রাখলে যেরকম আমাদের দেহের ময়লা পরিষ্কার হয় ঠিক

তেমনি আমাদের সম্পদের যাকাত আদায় করলে সম্পদের ময়লা পরিষ্কার হয় ।

যাকাত দিলে আল্লাহতালা তার সম্পদের বরকত দান করেন এবং রক্ষক হয়ে যান।

গুরুত্বপূর্ণ ইসলামী উপদেশ মূলক বাণী গুলোর মধ্যে হচ্ছে

মানুষের জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত পুরো জীবনটাই ইবাদত হয়ে যায়

যখন সে কোরআন ও সুন্নাহর নিয়ম-নীতি ভাবে পুরো জীবনটা অতিবাহিত করে।

একটি মানুষ ফজরের নামাজ থেকে শুরু করে এশা নামাজ পর্যন্ত যে কাজগুলো করে থাকে সেগুলির যদি কোরআন ও সুন্নাহ অনুযায়ী হয়, তাহলে তার সমস্ত দিনের কাজ গুলি তার নেক আমল হিসেবে পরিগণিত হয়।

আমরা সহজেই আমাদের জীবনকে সম্পূর্ণ ইবাদতের মধ্যে লাগাতে পারি যদি আমরা একটু চেষ্টা করি।

এবং সহি নিয়ত করি নিয়ত করা জরুরি, যে আমি কি উদ্দেশ্যে কাজটি করছি যে কোন আমল এবং কাজের ক্ষেত্রে নিয়ত বা সহি নিয়ত হচ্ছে জরুরি।

নিয়ত ঠিক না থাকার কারণে যে কোন আমল বরবাদ হয়ে যেতে পারে, সেজন্য বুযুর্গানে দ্বীন রা বলেছেন যে

“যে কোনো আমল করার সময় বা কাজ করার সময় তোমার নিয়ত কে চেক করো” যে আমি যে আমলটি করতেছি সেটা শুধু আল্লাহর জন্য হচ্ছে কিনা না লোক দেখানো হচ্ছে।

এভাবে নামাজে যখন দাঁড়াই তখন আমাদের নিয়ত চেক করে নেওয়া এবং নামাজের মাঝখানে ও চেক করা

এবং নামাযের শেষে ও চেক করা শুধু ইবাদতের ক্ষেত্রে ও নয় প্রাত্যহিক জীবনে আমাদের ব্যবসা-বাণিজ্য চাকরি-বাকরি ক্ষেত্রেও প্রত্যেকে আমরা যদি নিয়তকে চেক করে নেই । আমি যে কাজটি করতেছি সেটা কি জন্য করতেছি,

তাহলে আমাদের পুরো জীবন টি ইবাদত হিসেবে পরিগণিত হবে

বিশ্বাস নিয়ে উক্তি

বিশ্বাস বিভিন্ন প্রকার অন্যের প্রতি বিশ্বাস, নিজের উপর বিশ্বাস, আদর্শে বিশ্বাস, লক্ষ্যে বিশ্বাস, ইত্যাদি

সফল ব্যক্তিরা সর্বোপরি তাদের আদর্শে বিশ্বাস করে।

এজন্য তারা যেকোনো পরিস্থিতিতে কাজ করতে পারে এবং দিনের শেষে সফল হতে পারে

অন্যের প্রতি বিশ্বাস :

অন্যের প্রতি বিশ্বাস থাকা জরুরি আমরা মানুষ হিসেবে একজন আরেকজনকে বিশ্বাস করা প্রয়োজন,

আমি নিজে যদি আরেকজনকে বিশ্বাস না করি তাহলে আরেকজনের থেকেও আমি বিশ্বাস পেতে পারি না।

বিশ্বাস এমন একটি বিষয় যে মানুষকে সুন্দর ভবিষ্যৎ গড়তে সাহায্য করে আমরা সামাজিক জীব হিসেবে প্রত্যেকে আমরা

একসাথে বসবাস করি, তাই আমরা যদি আমাদের প্রতিবেশী কে বিশ্বাস না করি এভাবে তারা আমাদেরকে বিশ্বাস করবে না এবং সেক্ষেত্রে একটি বিশৃংখল পরিবেশ সৃষ্টি হবে।

আমাদের ইসলাম ধর্মে এবং প্রতিটি ধর্মেই বিশ্বাসের প্রতি গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে ধর্মের মূলমন্ত্র হচ্ছে বিশ্বাস সৃষ্টিকর্তার প্রতি অগাধ বিশ্বাস,

এবং শেষ নবী কে বিশ্বাস এই দুইটি বিশ্বাস এবং আমল একটি মানুষকে জান্নাতের উঁচু স্থানে পৌঁছাতে পারে।

তাছাড়া যে কোন নেক আমল করতে হলে, সেই আমলটি প্রতি বিশ্বাস থাকতে হবে সেই আমলটি প্রতি যথাযথ বিশ্বাস না থাকলে সেটা কবুল হয় কিনা তা নিয়েও সন্দেহ থাকে।

নিজের উপর বিশ্বাস :

নিজের উপর বিশ্বাস একটি মানুষকে চলার জন্য সহজ করে দেয় যেটাকে ইংরেজি ভাষাতে “সেল্ফ কনফিডেন্স” বলে এবং এই বিষয়টি প্রত্যেকটি মানুষের মধ্যে থাকা খুবই জরুরী,

মানুষের মধ্যে যদি সেল্ফ কনফিডেন্স না থাকে তাহলে সে যে কোন কাজে সফল হওয়ার মুখ দেখবে না এবং কঠিনতম কাজ গুলি সে করতে পারবেন না,

তাই প্রত্যেকটি মানুষকে সেল্ফ কনফিডেন্স থাকা খুবই জরুরী ।

আদর্শে বিশ্বাস :

সফল ব্যক্তিরা তাদের আদর্শের উপর অবিচল থাকে কারণ তারা দেখেছে যে তাদের সফলতার পিছনে এর গুরুত্ব রয়েছে আদর্শ থেকে বিচ্যুত কোন ব্যক্তি জীবনে কখনো উন্নতি করতে পারেনা।

বিশ্বাসের উপর অবিচল থাকা ব্যক্তিরা যেকোনো পরিস্থিতিতে তারা চলতে পারে এবং পরিস্থিতির মোকাবেলা করতে পারেন তাই তারা সফল হয়, তাই প্রত্যেককেই তার আদর্শে অবিচল থাকা প্রয়োজন ।

লক্ষ্যে বিশ্বাস :

লক্ষ্যের প্রতি বিশ্বাস মাধ্যমে মানুষ অনেকদূর পর্যন্ত এগিয়ে যেতে পারে মানুষ কে প্রতিনিয়ত তার লক্ষ্য ঠিক রেখে এগিয়ে যেতে হয় ।

লক্ষ্যকে সামনে রেখে না চললে যে কোন কাজে সফল হওয়া যায় না তাই লক্ষ্যের উপর অবিচল থাকা সফলতার অন্যতম চাবিকাঠি ।

মনীষীদের উক্তি

সৎ লোক সাত বার বিপদে পড়লে উঠে দাঁড়ায় আর অসৎ লোক একবারে নিপাতে যায়”- স্বামী বিবেকানন্দ ।

যদি আপনি কোন কাজ শুরু করতে যেয়ে বিলম্ব করেন তাহলে ঐ কাজটি আপনি করতে পারবেন না সুতরাং বুদ্ধিমানের কাজ হল চিন্তায় বেশি সময় ব্যয় না করা”- ব্রুস লি ।

“জীবনে যত পরিবর্তন যত সমস্যা আসবে সে তত বেশি সফল হবে কারণ প্রতিটি সমস্যাই নতুন করে একটি সুযোগ নিয়ে আসে”- রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ।

জীবনের লড়াই সব সময় শক্তিমান ব্যক্তি জিততে পারে না বরং সেই জিতে যেভাবে সে জিততে পারবে”- মার্ক জাকারবার্গ ।

“নিজের সার্টিফিকেট নিজে দিও,না খেয়াল করে অন্যরা তোমাকে কি ভাবে তাদের কাছ থেকে সার্টিফিকেট নাও ,নিজের সমালোচনা করেই দেখনা শুদ্ধ হওয়া কঠিন কিছু না”- কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ ।

“আমাদের মধ্যে সম্মান করার প্রবণতা এবং অসম্মান করার প্রবণতা দুইটি আছে কাউকে পায়ের নিচে চেপে ধরতে ভালো লাগে আবার কাউকে মাথায় উঠে নাচতে ভালো লাগে”- কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ ।

শিক্ষামূলক উক্তি

“মানুষের প্রয়োজনের কারণেই ধর্মের সৃষ্টি তাই ধর্ম মানুষের সুন্দর জীবনের কথাই বলে”- স্টেপ হ্যান্ ।

মোটিভেশনাল উক্তি

জীবনে নিজের তুলনায় কোনো কিছুর সাথে করবেন না, যেমন চাঁদ আর সূর্যের তুলনায় কারো সাথে চলে না তারা সময়মতো চমকায়,

আপনিও সেরকম চমকান, দেখবেন পৃথিবী আপনার পায়ের তলায় এসে পড়েছে। যার স্বপ্ন অনেক বড় কিছু হয় তার অপেক্ষা অনেক বড় করতে হয় এবং সহযোগিতার বেশি থাকতে হয়।

ঠিক তেমনি যে এভারেস্ট জয় করেছে সে কিন্তু একদিন এই এভারেস্ট জয় করতে পারেনি ধীরে ধীরে জয় করেছে জীবনের প্রতিটি চলার পথে অনেক রকম বাধা বিপত্তি আসবে সে বাধা-বিপত্তি পেরিয়ে এগিয়ে যেতে হবে ।

প্রতি টা মানুষের মধ্যে কোনো না কোনো প্রতিভা আছে সেই প্রতিভা কে যদি সে কাজে লাগায় তাহলে জীবনে সাফল্য আসবেই

তাই বলে সবার প্রতিভা এক রকম হবে না এবং সকলে এক কাজের উপরে সাফল্য পাবে না , সুতরাং যে, যে কাজটি পারে সেই কাজটি নিয়ে তার এগুনো উচিত ।

উপসংহার

পরিশেষে কিছু জরুরী কথা বলা প্রয়োজন আমার এই লেখাগুলির একমাত্র উদ্দেশ্য হচ্ছে মানুষকে তার জ্ঞান অর্জনে সাহায্য করা

আমি এখানে মূলত বিভিন্ন উপদেশ মূলক বাণী গুলি এনেছি, এজন্যই যে মানুষ এটা অধ্যায়ন করে তার জীবনে কাজে লাগাতে পারে ।tech515.com

লাইফস্টাইল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *